বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২২
spot_img
হোমশিল্প সাহিত্যওয়াহিদ নাগরের ‘সপ্তবর্ণ’ : জীবনের নানা ঘটনা ও ভ্রমণ অভিজ্ঞতার কাব্যিক ডায়েরি

ওয়াহিদ নাগরের ‘সপ্তবর্ণ’ : জীবনের নানা ঘটনা ও ভ্রমণ অভিজ্ঞতার কাব্যিক ডায়েরি


অমর একুশে বইমেলা ২০২২ উপলক্ষে প্রকাশিত হয়েছে কবি ওয়াহিদ নাগরে বই সপ্তবর্ণ। ৯৬ পৃষ্ঠার এই বইটিতে স্থান পেয়েছে ব্যক্তিগত, সামাজিক, রাজনৈতিক, বৈপ্লবিক, ধর্মীয়, রম্য ও প্রেম এই সাত ধরনের কবিতা। বইটির মূল্য রাখা হয়েছে ২৫০ টাকা।
আশির দশকের তুখোড়, সংগ্রামী ছাত্রনেতা ও তরুণ বিপ্লবী হিসেবে খ্যাত ওয়াহিদ নাগর। সেই আশির দশক, নব্বইয়ের দশক পাড়ি দেওয়া তার জীবনের নানা ঘটনা ও ভ্রমণ অভিজ্ঞাতার একটি ডায়েরি যেন এ বইয়ের কবিতাগুলো। এ কবিতাগুলোকে তিনি ব্যক্তিগত, সামাজিক, রাজনৈতিক, বৈপ্লবিক, ধর্মীয়, রম্য ও প্রেম এই সাতটি অধ্যায়ে বিভক্ত করে সপ্তবর্ণ নামকরণ করেছেন।
সমুদ্রের মাছেরও একটা সীমানা আছে, যা অতিক্রম করে খুব বেশি দূর যায় না। কিন্তু ওয়াহিদ নাগর সীমাহীন এক জলযাত্রী। আকাশের নীল আর নীল ঢেউ ভেদ করে ছুটে চলেছেন বন্দরে বন্দরে। জলের সাথে বসবাস করেও অশ্রুজলে লিখেছেন বছরের পর বছর, যুগের পর যুগ ধরে কবিতা। তাই এ কবিতাগুলো জলের মতোই প্রবহমান।
বর্জ্য, মাছ, শ্যাওলা কিংবা শত শত জাহাজ নিয়ে যেমন সমুদ্র আপন চৈতন্যে মগ্ন থাকে সেইরূপ স্বভাব পেয়েছেন ওয়াহিদ নাগর। সমাজ, ধর্ম, প্রেম, বিপ্লব কত কী যে তার মনস্রোতে ভেসে থাকে তার কোনো হিসাব নেই। প্রাচ্য ও প্রাশ্চাত্য তিনি ঘুরে বেরিয়েছেন কর্মসূত্রে। ফলে তার দেখা, জানা, বোঝা অন্যদের থেকে আলাদা। কবিতাশৈলীর মান বিচারের থেকেও বিশুদ্ধ, সরল ও সুচিন্তার দিক দিয়ে এ কবিতাগুলো উত্তম পাঠ্য। প্রেমের জন্য প্রার্থনা কার কাছে করতে হবে? প্রেমিকা নাকি প্রেমিকার স্রষ্টার প্রতি? তার থেকেও প্রাথমিক যে কাজটি তা এ কবিতা দিয়েই চালিয়ে দেওয়া যায়। ওয়াহিদ নাগরের এ কবিতাগুলো অব্যর্থ, অচিন অনুভ‚তির সঞ্চয়পত্র।
ওয়াহিদ নাগর কবি সুফিয়া কামাল, শামসুর রহমান, নির্মলেন্দু গুণ, হেলাল হাফিজ, মহাদেব সাহার মতো জ্ঞানীগুণী ব্যক্তিদের স্নেহভাজন ও সহযোদ্ধা। তিনি একাধারে কবি, গীতিকার, ছড়াকার ও আবৃত্তিকার।
দৈনিক ও সাপ্তাহিক পত্রিকার নিয়মিত লেখক। তার কবিতা রেডিও-টিভিতে সম্প্রচারসহ বিভিন্ন পথনাটক ও বিভিন্ন শোভাযাত্রায় প্রচার হয়েছে। মাধ্যমিকে অধ্যায়নরত অবস্থায় তার কবিতা লেখার হাতেখড়ি।
ছোটবেলা থেকে তার দেশভ্রমনের শখ। বাল্যকালে দেশের বিভিন্ন জেলায় অবাধে ঘুরে বেড়াতেন। তিনি জীবন ও জীবিকার তাগিদে সমুদ্রগামী বাণিজ্যিক জাহাজে চাকরি গ্রহণ করেন। এ সুবাদে এশিয়া, ইউরোপে, আফ্রিকা, উত্তর আমেরিকা, দক্ষিণ আমেরিকা ও অষ্ট্রেলিয়া মহাদেশের সবকটি দেশ একাধিকবার করে ঘুরে বেড়ান এবং বাল্যকালের স্বপ্ন, শখ পূরণ করেন।
সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে ওয়াহিদ নাগরের জন্ম। তার গ্রাম-বেতাল, ডাকঘর-পুরাপাড়া, উপজেলা-নগরকান্দা, জেলা-ফরিদপুর। তার পিতা-মরহুম আকমাল হোসেন মিয়া, মাতা-ফয়জরা খাতুন। সাত ভাই দুই বোনের মধ্যে তিনি ষষ্ঠ। তিনি দুই কন্যা সন্তানের জনক।

আরো দেখুন

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত